কোটা ইস্যুতে রোববার সুপ্রিম কোর্টে শুনানি, আশা করি সমাধান আসবে কারফিউয়ের সময়সীমা আরো বাড়ল কারফিউ প্রত্যাহার দাবি বিএনপির, আমির খসরু আটক কোটা আন্দোলনে কারফিউয়ের দিনেও ঢাকাতে ১০ জনের মৃত্যু বাংলাদেশের ছাত্রদের প্রতি সংহতি পশ্চিমবঙ্গে কোটা নিয়ে আপিল শুনানি রোববার চট্টগ্রাম ও রাজশাহী শহরের পরিস্থিতি নরসিংদীর কারাগারে হামলার পর পালিয়েছে আট শতাধিক আসামী শনিবার ঢাকায় কারফিউ-র যে চিত্র দেখা যাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর দুই বিদেশ সফর বাতিল বিএনপি নেতা নজরুল ইসলাম খান আটক সরকারের কাছে 'আট দফা দাবি' কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের: ‘শাটডাউন’ কর্মসূচি চলবে নুরুল হক নুরকে আটক করা হয়েছে নাহিদ ইসলাম এখন কোথায়? হাইকোর্টের রায় বাতিল চাইবে রাষ্ট্রপক্ষ: অ্যাটর্নি জেনারেল শনিবার সহিংসতায় মৃত্যু হয়েছে আরো অন্তত সাত জনের কখন ফিরবে ইন্টারনেট সংযোগ - কেউ জানে না রোববার ও সোমবার সাধারণ ছুটি ঘোষণা কারফিউ দিনে ঢাকায় যে চিত্র দেখা গেছে সাতক্ষীরায় ছাত্রদল নেতার ইন্ধনে থানা ঘেরাওয়ের চেষ্টা!

যাত্রী হিসেবে সিএনজিতে তুলে উত্তরণ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকার স্বর্ণ ছিনতাই

কক্সবাজার শহরের লাবনী পয়েন্ট এলাকায় এবার ছিনতাইয়ের শিকার হলেন একজন স্কুল শিক্ষিকা। 

অভিনব কায়দায় ছিনতাইকারীরা উক্ত স্কুল শিক্ষিকার ৪ আনা ওজনের স্বর্ণের চেইন ও ৪ আনা ওজনের কানের দুল ছিনিয়ে নিয়ে গেছে। 


৯ জুলাই মঙ্গলবার বিকেল ৪টায় এই ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় সদর থানায় অভিযোগ দায়ের করলে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন এবং ছিনতাইকারীদের সনাক্ত করার চেষ্টা চলছে বলে জানান।


কক্সবাজার উত্তরণ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা কৃষ্ণা দাশ বলেন, আমি দীর্ঘদিন ধরে উত্তরণ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকতার পাশাপাশি জেলা কারাগারের এক কর্মকর্তার বাচ্চাদের টিউশনি পড়াই। সে অনুযায়ী ৯ জুলাই বিকাল সাড়ে ৩ টার দিকে আমি টিউশন শেষ করে জেলা কারাগারের ক্যান্টিনের সামনে আসলে একটি সিএনজি থেকে চালক আমাকে তার গাড়িতে উঠতে বলে। তখন আমি দেখতে পাই সেখানে আগে থেকে উক্ত সিএনজিতে পেছনের সিটে একজন এবং সামনের সিটে চালকের পাশে একজন বসে আছে। তারা আমাকে খুব ভাল ব্যবহার করে গাড়িতে উঠতে বলে আমার গন্তব্যস্থল শহরের ঘোনারপাড়ায় পৌছে দেবে বলে জানান। পরে ছিনতাইকারীরা শহরের লাবনী পয়েন্টে আসলে গাড়ি জোরে ব্রেক করে সামনের সিটের লোকটি নেমে একটি ছোট ব্যাগ কুড়িয়ে নেয়। সেই ব্যাগ থেকে একটি হস্তলেখা কাগজ ও একটি স্বর্ণের বার সাদৃশ্য সোনালী রঙ্গের শক্ত ধাতব বস্তু বের করে আমাকে উক্ত সোনালী রঙ্গের ধাতব বস্তুটি ৫ ভরি ওজনের স্বর্ণ দাবী করে আমাকে কিনতে বলে। আমি সেটা আসল র্স্বণ নয় মর্মে কথা বলার সময় তারা ৩ জনেই জোর করে সেই ধাতব বস্তুটি আমার হাতে দিয়ে আমার গলায় থাকা ৪ আনা ওজনের স্বর্ণের চেইন এবং ৪ আনা ওজনের স্বর্ণের কানের দুল ছিনিয়ে নেয়। আমি কিছু বুঝে উঠার আগেই তারা আমাকে সামনের বাহারছড়া জইল্যার দোকানের সামনে নামিয়ে দিয়ে পালিয়ে যায়। পরে আমি কোন মতে জ্ঞান ফিরে আসলে স্বামী বিজয় কুমার ধরকে খবর দিলে তিনি আমাকে উদ্ধার করেন। পরে সদর মডেল থানায় গেলে বিষয়টি খুলে বললে তারা তাৎক্ষনিক এস আই সেলিম সহ একদল পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। 


এ নিয়ে সদর মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এদিকে উক্ত ঘটনার পরে এখনো মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েছেন স্কুল শিক্ষিকা কৃষ্ণা দাশ।

Tag