কোটা ইস্যুতে রোববার সুপ্রিম কোর্টে শুনানি, আশা করি সমাধান আসবে কারফিউয়ের সময়সীমা আরো বাড়ল কারফিউ প্রত্যাহার দাবি বিএনপির, আমির খসরু আটক কোটা আন্দোলনে কারফিউয়ের দিনেও ঢাকাতে ১০ জনের মৃত্যু বাংলাদেশের ছাত্রদের প্রতি সংহতি পশ্চিমবঙ্গে কোটা নিয়ে আপিল শুনানি রোববার চট্টগ্রাম ও রাজশাহী শহরের পরিস্থিতি নরসিংদীর কারাগারে হামলার পর পালিয়েছে আট শতাধিক আসামী শনিবার ঢাকায় কারফিউ-র যে চিত্র দেখা যাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর দুই বিদেশ সফর বাতিল বিএনপি নেতা নজরুল ইসলাম খান আটক সরকারের কাছে 'আট দফা দাবি' কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের: ‘শাটডাউন’ কর্মসূচি চলবে নুরুল হক নুরকে আটক করা হয়েছে নাহিদ ইসলাম এখন কোথায়? হাইকোর্টের রায় বাতিল চাইবে রাষ্ট্রপক্ষ: অ্যাটর্নি জেনারেল শনিবার সহিংসতায় মৃত্যু হয়েছে আরো অন্তত সাত জনের কখন ফিরবে ইন্টারনেট সংযোগ - কেউ জানে না রোববার ও সোমবার সাধারণ ছুটি ঘোষণা কারফিউ দিনে ঢাকায় যে চিত্র দেখা গেছে সাতক্ষীরায় ছাত্রদল নেতার ইন্ধনে থানা ঘেরাওয়ের চেষ্টা!

চিলমারীতে ত্রাণের দাবীতে উপজেলা পরিষদ ঘেরাও

চিলমারীঃ ত্রাণের দাবীতে উপজেলা পরিষদ ঘেরাও

হাবিবুর রহমান, চিলমারী(কুড়িগ্রাম)প্রতিনিধিঃ কুড়িগ্রামের চিলমারীতে টানা ১০দিন থেকে ৬টি ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা পানির নিচে তলিয়ে আছে। চরম খাদ্য সংকটে পড়েছেন বানভাসি মানুষেরা। এদিকে দীর্ঘদিন ধরে সরকারীভাবে ত্রাণ সহায়তা না পেয়ে, আজ বুধবার (৭ই জুলাই) দুপুরে বন্যায় দূর্গত বিভিন্ন এলাকার মানুষেরা উপজেলা পরিষদ ঘেরাও করেন। পরে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ রুকুনুজ্জামান শাহিন অফিস থেকে নিচে এসে, ত্রাণের জন্য হা-হাকাররত বন্যায় দূর্গত মানুষের মাঝে ত্রাণ পৌঁছে দেওয়ার আশ্বাস দেন। এ সময় নয়ারহাট ইউনিয়ন থেকে আসা আছিয়া বেগম, সালমা বেগম, কহিনুর বেগম ও সুচনা বেগম বলেন, বাঁশের মাচান, নৌকা ও কলা গাছের ভুরায় (ভেলায়) আশ্রয় নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছি। এখন পর্যন্ত ত্রাণ সহায়তা পাইনি। আমরা যদি না খেয়ে মরে যাই তাহলে ত্রাণ দিয়ে কি লাভ হবে বলে জানান তারা। অষ্টমীর চর এলাকার নুর মোহাম্মদ, সাইদুল ও সুমন বলেন, অকাল বন্যায় সবকিছু ডুবে গেছে। শিশু, বৃদ্ধ, গরু, ছাগল ও হাঁস-মুরগী নিয়ে অনেক কষ্টে একই ঘরে গাদাগাদি করে থাকছি। আমাদের ও গবাদি পশুদের চরম খাদ্য সংকট দেখা দিয়েছে। এ বিষয়ে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ রুকুনুজ্জামান শাহিন বলেন, সরকারী ভাবে বরাদ্দ পাওয়া ত্রাণ বন্যায় দূর্গত মানুষের মাঝে পৌঁছে দেয়া হচ্ছে। এবং জেলা প্রশাসকের কাছে আরো ত্রাণের জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে। বন্যায় দূর্গতরা ত্রাণের জন্য জোর করে আইডি কার্ড আমার কাছে জমা দিয়ে যাচ্ছেন। নতুন করে বরাদ্দ পেলে পর্যায়ক্রমে তাদের মাঝে বিতরণ করা হবে বলে জানান তিনি। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ মোশারফ হোসেন বলেন, এ পর্যন্ত সরকারী ভাবে ৬৬ মেট্রিক টন চাল ও নগদ ৩ লাখ ৬০ হাজার টাকা বরাদ্দ পাওয়া গেছে। বরাদ্দকৃত চাল ও নগদ অর্থ পর্যায়ক্রমে বন্যায় দুর্গতদের মাঝে বিতরণ করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।