সাইকেলে করে ভারত ভ্রমন! 'স্বপ্ন' নিয়ে প্রতারনার জাল ফেসবুকে! ২য় ম্যাচে ব্রাজিলের ড্র! স্বেচ্ছাশ্রমে কুড়িগ্রামে করোনার টিকা রেজিস্ট্রেশন ক্যাম্প শামীমের ব্যাটে শেষ রক্ষা বাংলাদেশের সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে অতর্কিত হামলায় দুই সেনা নিহত, তুরস্কের হুশিয়ারি চামড়া ব্যবস্থাপনার আমরা সুফল পেয়েছি: শিল্পমন্ত্রী কোটিপতি বেড়েছে আরও ১১৬৪৭ জন কুড়িগ্রামে বিয়ের প্রলোভনে প্রেমিকাকে ধর্ষণ কুড়িগ্রামে ভিক্ষের টাকা ঘুষ দিয়েও ভাতা কার্ড পাননি ষাটোর্ধ রাবেয়া আজমিরীগঞ্জে লকডাউনে কঠোর অবস্হানে প্রশাসন শেরপুরের সোহাগপুর গণহত্যা দিবস পালিত করোনার মৃত্যু ও সংক্রমণে শীর্ষে ঢাকা টস হেরে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ ইরাক থেকেও মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করোনায় কর্মহীনদের তালিকা করে নিরাপত্তা নিশ্চিত করার আহ্বান অলিম্পিক ফুটবলে আর্জেন্টিনার প্রথম জয় মৌসুমি বায়ুর জন্য ফের বৃষ্টি বাড়বে সংগঠনের নামে ‘লীগ’ বা ‘আওয়ামী’ জুড়ে আ.লীগে সম্পৃক্ত হওয়ার সুযোগ নেই লকডাউন মেনে চলার অনুরোধ স্বাস্থ্যমন্ত্রীর

ফখরুলরা খালেদা জিয়ার জন্মতারিখ নিয়ে ছিনিমিনি খেলছেঃ তথ্যমন্ত্রী

আহসান ইমন - এডিটর

প্রকাশের সময়: 14-06-2021 22:04:07

Photo caption :

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার জন্ম তারিখ নিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের কাছে প্রশ্ন রেখে তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘আপনারা বেগম খালেদা জিয়াকে এভাবে পাঁচ-ছয়টি জন্মের তারিখ দিয়ে কেন বারবার জন্মগ্রহণ করালেন?’


সোমবার (১৪ জুন) বিকালে সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এসব কথা বলেন। এ সময় মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান উপস্থিত ছিলেন। মন্ত্রণালয়ের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়।


এদিন দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘এটা (জন্মদিন) ইস্যু হতে পারে না। পার্টিকুলার একটা ডেটে কেউ জন্ম নিতে পারবে না, এটা ঘোষণা দিলেই হয়ে যায়। তাহলে ডেট দেখে সন্তানের জন্ম দেওয়ার কথা চিন্তা করতে হবে।’


মন্ত্রী বলেন, কোনও সরকারি নথিতে খালেদা জিয়ার জন্মের তারিখ ১৫ আগস্ট উল্লেখ নাই, অথচ বিএনপি’র পক্ষ থেকে খালেদা জিয়ার ১৫ আগস্ট কেক কাটা হয়। প্রকৃতপক্ষে ১৫ আগস্ট কেক কাটা হয় সেদিনের হত্যাকাণ্ডকে সমর্থন করার জন্য, হত্যাকারীদের উৎসাহ দেওয়ার জন্য, ১৫ আগস্টের এই মর্মান্তিক ঘটনাকে উপহাস করার জন্য।


খালেদা জিয়ার পাসপোর্ট ও করোনা টেস্ট রিপোর্টে তার জন্ম তারিখের চিত্র নিজের আইপ্যাড থেকে সাংবাদিকদের কাছে তুলে ধরে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেন, খালেদা জিয়ার প্রতি যথাযথ সম্মান রেখেই বলতে চাই, মেট্রিক পরীক্ষার ফরমে খালেদা জিয়ার জন্ম তারিখ উল্লেখ করা হয়েছে ৫ সেপ্টেম্বর ১৯৪৬ সাল। আবার তার বিবাহ সনদে জন্মের তারিখ উল্লেখ আছে ৫ আগস্ট ১৯৪৪ সাল। ১৯৯১ সালে তিনি যখন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন তখন সরকারি নথিতে তার জন্ম তারিখ উল্লেখ আছে ১৯ আগস্ট ১৯৪৭ সাল। আর বর্তমানে যে পাসপোর্ট তিনি ব্যবহার করছেন সেখানে তার জন্ম তারিখ উল্লেখ আছে ৫ আগস্ট ১৯৪৬ সাল। সম্প্রতি তিনি যে করোনার টেস্ট করেছেন, সেখানে তার জন্মের তারিখ উল্লেখ আছে ৮ মে ১৯৪৬ সাল। কয়টি জন্ম তারিখ হলো?’


তার মতে, এভাবে জন্মের তারিখ বদলে দিয়ে ভুয়া জন্মদিন পালন কোনও মানুষের ক্ষেত্রেই হওয়া উচিত নয়। যদি ইউরোপে কোনও রাজনীতিবিদের এ ধরনের কয়েকটি জন্ম তারিখ হতো, তিনি রাজনীতিতেই অযোগ্য ঘোষিত হতেন।


তথ্যমন্ত্রী বলেন, আসলে মির্জা ফখরুল সাহেবরা বেগম খালেদা জিয়ার জন্মের তারিখ নিয়ে ছিনিমিনি খেলছেন। একজন মানুষের পাঁচটা জন্ম তারিখ হওয়া মানে তার জন্মের তারিখ নিয়ে ছিনিমিনি খেলা, এটা তারাই করেছেন।