চশমা নিয়ে চিলমারীতে জামান বিজয়ী ‘বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধকে জানি’-ডকুমেন্টারি নির্মাণে ভোলা জেলায় ১ম হয়েছে লালমোহন হা-মীম স্কুল ৩ দিন ধরে পানি নেই বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে, চরম দুর্ভোগে রোগীসহ হাসপাতালের চিকিৎসক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীরা নার্সের অবহেলায় হাসপাতালে দুই শিশুর মৃত্যুর অভিযোগ দক্ষিনী সিনেমার সেরা অভিনেতা 'মহেশ বাবু' বরিশাল রেঞ্জ'র শ্রেষ্ঠ পুলিশ সুপার মোঃ মারুফ হোসন বরিশাল জেলা প্রশাসন ও জেলা সমাজসেবা অধিদফতরের উদ্যোগে দুস্থ অসহায় মানুষকে আর্থিক সহায়তা বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে ফুট ওভারব্রিজ প্রয়োজন সড়ক দূর্ঘটনায় দক্ষিণ আফ্রিকার মেয়র নিহত করোনাভাইরাস : সবচেয়ে কম শনাক্তের দিনে মৃত্যুশূন্য বরিশাল পুলিশ সদস্যদের সার্বিক কল্যাণে যেমনি পাশে আছি, তেমনি তাদের শৃংখলা রক্ষার্থে কঠোর থেকে কঠোরতম অবস্থানে রয়েছি-বিএমপি কমিশনার লক্ষ্মীপুরের মির্জাপুর এলাকার মাওঃনজীর আহমদ আর নেই লক্ষ্মীপুরের মির্জাপুর এলাকার মাওঃনজীর আহমদ আর নেই বরিশালের ঐতিহ্যবাহী দূর্গা সাগর দিঘি ও কালেক্টরেট পুকুরে পাছের পোনা অবমুক্ত বরিশালে বোনের জমি-ফ্লাট দখলে নিতে মাকে বাসা থেকে বের করে দিলো দুই ছেলে ফরিদপুরে কাশফুলের রাজ্য শেরপুরে মুজিব শতবর্ষ জেলা দাবা লীগ শুরু আজ ॥ শ্রীবরদীতে পুলিশের অভিযানে হেরোইনসহ ৩ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার খালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ ছয় মাস বাড়ানো হয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বরিশালে ইমারত নির্মাণ শ্রমিকদের মানববন্ধন ও বিক্ষোভ

ঝিনাইদহ সদর হাসপাতাল ও এখানকার করোনা পরিস্থিতি নিয়ে ভাবতে হবে

মোহাম্মদ রায়হান - ঢাকা কলেজ প্রতিনিধি

প্রকাশের সময়: 10-07-2021 17:21:14

Photo caption :

মোঃ সোহাগ হোসেন: বৈশ্বিক করোনা মহামারীর ভয়াল থাবাতে নাজুক বর্তমান সারা বাংলাদেশ। তার মধ্যে রেড এলার্টে রয়েছে খুলনা বিভাগ। প্রতিদিনের রেকর্ড ব্রেক হচ্ছে আক্রান্ত ও মৃত্যুতে। খুলনা বিভাগের অন্তর্গত ঝিনাইদহ জেলার বর্তমান অবস্থা আরও ভয়াবহ। হসপিটালে মৃত্যুর পাশাপাশি গ্রামে উপসর্গহীন মৃত্যুও অনেক বেড়ে গিয়েছে। এদিকে সদর হসপিটালের করোনা ইউনিটের বারান্দাসহ সব জায়গাতে রুগী ভর্তি হচ্ছে নানান জটিলতা নিয়ে।চারিদিকে চলছে আপনজনকে বাচাঁনোর নানা প্রচেষ্টা। কেউ বাচাঁতে পারছে আবার কেউবা নিথর লাশ নিয়ে বাড়ি ফিরছে আহাজারি করতে করতে। কেউ কেউ আপনজনকে বাচাঁনোর শেষ চেষ্টার জন্য নিয়ে যেতে ব্যস্ত ঢাকার আইসিইউতে।যদিও বর্তমানে ঢাকাতেও আইসিউ সব ভর্তি। অর্থাৎ সে এক অন্য রকম পরিস্থিতি যা নিজ চোঁখে না দেখলে বিশ্বাস করতে কষ্ট হবে। গত ৭ দিন বাবাকে নিয়ে হসপিটালে নির্ঘুম সময় অতিবাহিতকালে যে সমস্যাগুলো চোঁখে পড়েছে তা হলো -বিদ্যুৎ প্রায়ই থাকে না। ২৪ ঘন্টায় ১ বার ঝাড়ু দেয়। ফ্লো'র মোছার দৃশ্য চোখে পড়ে না, সেই সাথে ওয়াশরুমের বেহাল দশা। ডাস্টবিনের ময়লা পঁচে দুর্গন্ধ হয় তবুও পরিষ্কারের বালাই নেই।বিপদের মুহূর্তে ওয়ার্ড বয়দের পাওয়া যায় না। রুগীর মাথার উপরের ফ্যান যে গতিতে চলে তাতে রুগীর গায়ে লাগে না। অবজেকশন দিয়ে ৭ দিনেও সুফল নাই।

এদিকে নার্স-রা ফজরের আজানের সময়ে  তাদের সকালের রাউন্ড শুরু করে যা রূগীদের জন্য বিড়ম্বনার।
নার্স ও ডাক্তার স্বল্পতা। উপচে পড়া রুগী অথচ সারারাতে একজন ডিউটি ডাক্তার থাকে।কথিত আছে এখান থেকে কয়েকজন ডাক্তারকে ঢাকাতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।অথচ করোনা এই জেলাতে অতি মহামারীর রূপ নিয়েছে।প্রতিদিন ১০/১১ জন হসপিটালেই মারা যাচ্ছে।উপসর্গ নিয়ে বাড়িতে মারা যাচ্ছে আরও অনেক।

যেহেতু সাধারণ মানুষের চিকিৎসার এটাই ভরসার জায়গা।সুতরাং সবকিছুর সুন্দর ব্যবস্থাপনা থাকাটা জরুরী। কেননা বেসরকারি হসপিটাল কিংবা ঢাকাতে নিয়ে চিকিৎসা করানোর সক্ষমতা গ্রাম-গঞ্জের সাধারণ মানুষের নেই।তাই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে আরও সচেতন,আন্তরিক ও কাজে আরও গতিশীল হতে হবে যাতে করে সবাই ভালো চিকিৎসার পাশাপাশি ভালো পরিবেশটাও পেতে পারে। এটাই ঝিনাইদহ বাসীর লক্ষ লক্ষ গন মানুষের দাবী।


মোঃ সোহাগ হোসেন
দহিজুড়ি,গান্না ইউনিয়ন,ঝিনাইদহ।
সাবেক শিক্ষার্থী -ঢাকা কলেজ,ঢাকা



Tag
আরও খবর

আগামীর দিন শুধুই সম্ভাবনার

১০ দিন ৩ ঘন্টা ১০ মিনিট আগে



পরিবেশ দূষণ মানব ধ্বংসের প্রধান কারণ

১৯ দিন ১৪ ঘন্টা ৫৯ মিনিট আগে